অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প (Best Adsense Alternatives)

অ্যাডসেন্স এর এড থেকে আয় করতে পারছেন না? তাহলে এখানে অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প এড নেটওয়ার্কগুলো দেখুন, অনলাইনে আয় করুন অ্যাডসেন্স এর বিকল্প মাধ্যমে।

বন্ধুরা, আজকে আমরা জানতে চলেছি অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প মাধ্যমগুলো সম্পর্কে। তো সাথেই থাকুন, মন দিয়ে সম্পূর্ন লেখাটি পড়ুন যাতে করে সকল বাধা অতিক্রম করে খুব সহজে ও কম সময়ের মধ্যে আপনিও ব্লগিং থেকে আয় করতে পারেন অ্যাডসেন্স থেকে অথবা অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প উপায়গুলো থেকে।

আপনি যদি নিজের ব্লগ থেকে কিছুটা অতিরিক্ত আয় করতে চান তবে আপনি নিজের সাইটে বিজ্ঞাপন যুক্ত করার কথা বিবেচনা করতে পারেন। এটি করার জন্য আপনার প্রয়োজন একটি বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক (Ad Network) – এমন একটি পরিষেবা যা অনলাইন বিজ্ঞাপনদাতাদের ওয়েবসাইট প্রকাশকদের বা ব্লগারদের সাথে সংযুক্ত করে।

বেশিরভাগ বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্কগুলি আপনার ওয়েবসাইটে মনোনীত জায়গায় বা আপনার ঠিক করে দেওয়া স্থানে বিজ্ঞাপন দেওয়ার জন্য একটি স্বয়ংক্রিয় সিস্টেম ব্যবহার করে। যখন ভিজিটররা এই বিজ্ঞাপনগুলির সাথে ইন্টারএক্ট করেন – উদাহরণস্বরূপ, এগুলি দেখে, তাদের ক্লিক করে এবং / অথবা বিজ্ঞাপনের মাধ্যমে ক্রয় করে – আপনি কমিশনের একটি অংশ পান।

কোনও বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্কের অনুসন্ধানের সময় আপনি সম্ভবত গুগল অ্যাডসেন্স এর কথা জেনেছেন। এটি ওয়েবে সবচেয়ে জনপ্রিয় পে পার ক্লিক (Pay Per Click) (পিপিসি) প্রোগ্রাম, ১০ কোটিরও বেশি ওয়েবসাইটে ব্যবহৃত হচ্ছে। অ্যাডসেন্স লাইটওয়েট, নির্ভরযোগ্য, এবং পাব্লিশারদেরকে ক্লিক থেকে আসা আয়ের একটি ন্যায্য অংশ অফার করে।

তবে, এটিই একমাত্র এড নেটওয়ার্ক বা মনিটাইজেশন মাধ্যম নয়। এই পোস্টে, আমরা আলোচনা করব কেন আপনি নিজের সাইটের জন্য অন্যান্য বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্ক বা অ্যাডসেন্স এর কোন বিকল্পগুলো আপনার ওয়েবসাইটে ব্যাবহার করতে পারেন।

অতঃপর, আপনার ব্লগে ব্যাবহার করে দ্রুত আয় করা শুরু করতে পারেন। এমন অ্যাডসেন্সের বাইরের সেরা বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্কগুলি বা অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্পগুলো ঘুরে দেখব এবং জানব।

অবশ্যই দেখে নিতে ভুলবেন নাঃ ব্লগারের জন্য এইজ ক্যালকুলেটর (অ্যাডসেন্স সহ)

হাইলি রিকমেন্ডেড

অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প কেন ব্যাবহার করবেনঃ

গুগল প্ল্যাটফর্মের এমন বেশ কয়েকটি অসুবিধা রয়েছে যার জন্য অনেক ব্লগ বা ওয়েবসাইট অ্যাডসেন্স ব্যাবহারের সুবিধা ভোগ করতে পারেনা। এখন আমি আপনাদের কাছে তেমনই কিছু সমস্যা তুলে ধরবঃ

অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্পঃ ইলিজিবিলিটি রিকোয়ারমেন্টস (Adsense Eligibility Requirements)

গুগল অ্যাডসেন্সএড আপনার সাইটে বা ব্লগে প্লেস করার আগে তাদের অনেক শর্ত আপনাকে পূরন করতে হবে। প্রত্যেকটি শর্ত পূরন সাপেক্ষেই আপনি কেবল অ্যাডসেন্স এর অংশীদার হতে পারবেন। আর ক্ষেত্র বিশেষে এসব শর্ত পূরন করা অনেকের জন্যই অসাধ্য হয়ে পড়ে। এজন্য আপনি খুজে নিতে পারেন অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প।

প্ল্যাটফর্মটির ক্লিক জালিয়াতি নিয়ন্ত্রনের অতিমাত্রা কঠোরতার জন্য অনেক সময় আপনার অ্যাডসেন্স একাউন্টটিও বন্ধ থাকতে পারে। যেমন ধরুন, দুর্ঘটনাক্রমে একটি পৃষ্ঠা আপনার থাকা উচিত ছিল না এমন একটি বিজ্ঞাপনে রেখেছিলেন বা আপনি অজান্তেই নিজের বিজ্ঞাপনে ক্লিক করেছেন।

খুব কেয়ারফুল না হলে গুগল অ্যাডসেন্স এর শর্তাদি লঙ্ঘন করা হয়ে যেতে পারে আপনার অজান্তেই এবং তার জন্য কঠিন খেসারতও দিতে হবে আপনাকে। এমন অনেক কারনেই গুগল অ্যাডসেন্স আপনার জন্য উপযুক্ত মনিটাইজেশন সিস্টেম নাও হতে পারে।

এজন্য আপনার প্রয়োজন হতে পারে আরো সহজে ও কম শর্তে ওয়েবসাইট মনিটাইজ করতে দেয় এমন কিছু এড নেটওয়ার্ক। আর আজকে আমরা সেসব ব্যাপারেই আলোচনা করব এই আর্টকেলে।

লভ্যাংশ বণ্টনঃ (Revenue Share)

অ্যাডসেন্সের সাহায্যে প্রকাশকরা তাদের ওয়েবসাইটে বিজ্ঞাপন দ্বারা উত্পন্ন উপার্জনের ৬৮% পান। এটিও একটি প্রতিযোগিতামূলকভাবে ভালো লাভের হার, তবে কিছু বিকল্প নেটওয়ার্ক আরও বৃহত্তর ভাগের লভ্যাংশ অফার করে থাকে। তবে এজন্য আপনার একটি মানসম্পন্ন হাই কোয়ালিটি ট্রাফিক সম্পন্ন ওয়েবসাইট থাকা আবশ্যক। কিন্তু, চিন্তার কিছু নেই কারন লভ্যাংশের বিচারে এই রিকোয়ারমেন্ট কিছুই নয়।

এড কাস্টমাইজেশনঃ (Ad Customization)

কিছু বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্কগুলি আপনাকে আপনার মূল কন্টেন্টের সাথে আরও সুন্দরভাবে মানিয়ে নিতে বা ফিট করতে সহায়তা করার জন্য আপনার ওয়েবসাইটের থিমটিতে আপনার বিজ্ঞাপনগুলির জন্য পছন্দসই ধরন তৈরি করতে দেয়। কাস্টমাইজেশনের স্তরটি পরিষেবা অনুসারে পরিবর্তিত হয়, তবে অনেকগুলি আপনাকে একটি ইউনিটের রঙ এবং আকারকে সংস্কার বা কাস্টমাইজ করতে দেয় যা অ্যাডসেন্সের চেয়ে আরও ফ্লেক্সিবল।

মিনিমাম পে আউটঃ (Minimum Payout)

কোনও এড নেটওয়ার্কের সর্বনিম্ন অর্থ প্রদান বা মিনিমাম পে আউট আপনি কোনও পেমেন্ট পাওয়ার আগে আপনার ন্যূনতম পরিমাণ আয়ের দরকার। অ্যাডসেন্সের সর্বনিম্ন পরিশোধ $100, যা কিছু বিকল্প এড নেটওয়ার্কের তুলনায় বেশি। যদি আপনার ওয়েবসাইটটি ছোট বা কম প্রতিষ্ঠিত হয় তবে আপনি 100 ডলারে পৌঁছানোর পর্যন্ত অনেক বেশি সময় নিতে পারে। আপনি এমন কোনও এড নেটওয়ার্কে যুক্ত হতে পারেন এমন অবস্থায় যা আপনাকে গুগল অ্যাডসেন্স এর মিনিমাম পে আউটের চেয়ে কম ইনকাম হলেও আপনাক পে করবে।

বাড়তি আয়ের উৎসঃ (Additional Revenue Sources)

গুগল অ্যাডসেন্স রিপ্লেস করার পরিবর্তে, আপনার অতিরিক্ত উপার্জনের উত্স হিসেবে ব্যাবহার করার জন্য আপনি অ্যাডসেন্সের পাশাপাশি আপনার সাইটে চলতে পারে এমন কোনও বিকল্প অ্যাড নেটওয়ার্ক যুক্ত করতে পারেন। এতে কোনও অসুবিধা নেই, যতক্ষণ না আপনি অ্যাডসেন্স পরিষেবার শর্তাদির মধ্যে থাকবেন। যদি এগুলির যে কোনও একটির ক্ষেত্রে আপনার কাছে উপযুক্ত মনে হয় তবে অনেকগুলি উপযুক্ত বিকল্প রয়েছে যা আপনি চেষ্টা করতে পারেন।এজন্য আপনি খুজে নিতে পারেন অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প। আসুন সেরাগুলি দেখে নিই।

অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প অ্যাড নেটওয়ার্কগুলো


  • Media.net
  • PropellerAds
  • Revcontent
  • InfoLinks
  • Bidvertiser
  • RevenueHits
  • Adcash
  • BuySellAds
  • Skimlinks
  • Amazon Native Shopping Ads

Media.net

media.net প্রাসঙ্গিক বিজ্ঞাপনে শীর্ষস্থানীয়। পরিষেবাটি বিং এবং ইয়াহু দ্বারা পরিচালিত হয় এবং এটি অ্যাডসেন্স এর বিকল্প হিসাবে সর্বাধিক বেশি বিবেচিত হয়। ডেস্কটপ এবং মোবাইলের জন্য media.net একাধিক ধরণের ডিসপ্লে বিজ্ঞাপন এবং নেটিভ বিজ্ঞাপন সরবরাহ করে এবং আপনি অ্যাডসেন্সের সাথে এই বিজ্ঞাপনগুলি থেকেও ইনকামের আশা করতে পারেন।

ভালো একটি অ্যাডসেন্স বিকল্প হিসাবে, Media.net এর অনুমোদন এর প্রয়োজনীয়তার দিকে (Requirements) মনোযোগ দিন। এখানে এপ্রুভ হতে আপনার ব্লগকে অবশ্যই উচ্চমানের কন্টেন্ট দিয়ে সজ্জিত করতে হবে এবং একটি পরিষ্কার, পেশাদার ডিজাইনের দিকে খেয়াল করতে হবে। আপনার ট্র্যাফিক উত্সটিও গুরুত্ব দেয়: মিডিয়া ডট কমের প্রয়োজন হলো যে আপনার বেশিরভাগ দর্শক মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র, যুক্তরাজ্য এবং কানাডায় অবস্থিত।

আপনি যদি বৈশিষ্ট্য, গুণমান এবং প্রদানের হারের সাথে অ্যাডসেন্সের সাথে তুলনাযোগ্য কোনও অ্যাড নেটওয়ার্ক খুজতে থাকেন তাহলে, মিডিয়া ডট নেট একটি দুর্দান্ত সূচনা হতে পারে আপনার জন্য। পেপালের মাধ্যমে সর্বনিম্ন পরিশোধ $100 হয় এবং মাসিক ভিত্তিতে পেমেন্ট করা হয়।

অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প
Image Source

PropellerAds

প্রোপেলার অ্যাডস একটি দ্রুত বর্ধনশীল প্ল্যাটফর্ম যা নতুন এবং পুরাতন উভয় ব্লগ সাইটের জন্য মনিটাইজেশন সুযোগ দিয়ে থাকে। প্রোপেলারএডস পপ-আন্ডার বিজ্ঞাপনগুলির জন্য পরিচিত, যা বর্তমান ওপেন ব্রাউজার উইন্ডোর ব্যাকগ্রাউন্ডে লোড হয় এবং এই উইন্ডোটি বন্ধ হয়ে গেলে প্রদর্শিত হয়।

যদি পপ আন্ডার বিজ্ঞাপনগুলি আপনার কাছে বেশি এগ্রেসিভ মনে হয় আপনার ব্লগের ক্ষেত্রে, তাহলে প্রপেলার অ্যাডস ডেস্কটপের জন্য টার্গেটেড এবং নন টার্গেটেড তাছাড়া নেটিভ অ্যাড, ব্যানার বা ভিডিও বিজ্ঞাপনের সুবিধাও দিয়ে থাকে। এই নেটওয়ার্কটি মোবাইল সাইট এবং এপ্লিকেশনের জন্যও বিজ্ঞাপন অফার করে। এদের নতুন ও আরেকটি সুন্দর ব্যাবস্থা হলো পুশ নোটিফিকেশন এডস।

প্রপেলারঅ্যাডস এর সুবিধাগুলো হলো, মিনিমাম পে আউট মাত্র ৫ ডলার, তারা মান্থলি পে আউট করে পেপালের মাধ্যমে। আর সবচেয়ে মজার ব্যাপার হলো এদের কোন মিনিমাম রিকোয়ারমেন্টস নেই। নতুন বা পুরাতন যেকোন ব্লগের জন্য এটি একটি সেরা পছন্দ হতেই পারে।

অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্প
Image Source

Revcontent

রেভকন্টেন্ট হলো ন্যাটিভ অ্যাডের বস। এইদিক থেকে তারা বিজ্ঞাপন বাজারে সেরা। এর যথেষ্ঠ কারনও রয়েছে। তাদের বিজ্ঞাপনগুলো ডিজাইনই করা এমনভাবে যাতে করে তা আপনার সাইটের কন্টেন্ট এর সাথে খুব নিখুতভাবে মিশে যেতে পারে। এই অ্যাডগুলো হাইলি টার্গেটেড, যাতে করে খুব সহজেই আপনার সাইটের ভিজিটরদের আকর্ষণ করতে পারে। রেভকন্টেন্ট অন্যান্য বিজ্ঞাপনও অফার করে যেমন, ডিস্প্লে এড, মোবাইল এড, ভিডিও এড।

রেভকন্টেন্ট তার সুনাম ধরে রেখেছে তাদের পাব্লিসার আর অ্যাডভারটাইজার ক্লাইন্টদের মধ্যে। কারন একটাই, সেটি হলো তাদের সুন্দর ও আকর্ষণীয় বিজ্ঞাপনের জন্য। যাতে করে এংগেইজমেন্ট রেট অন্যান্য নেটওয়ার্কের চেয়ে অনেক ভালো।

চলুন এখন জেনে নিই তাদের সাথে কাজ করার জন্য কি কি থাকা প্রয়োজন। যেহেতু তারা অ্যাডসেন্সের চাইতেও বেশি সিলেক্টিভ সেজন্য খেয়াল করে পড়ুন তাদের রিকোয়ারমেন্টস। তারা আপনার ব্লগ বা ওয়েবসাইটকে তখনই এপ্রুভ করবে যখন আপনার সাইটে মাসিক ৫০,০০০ ভিজিটর থাকবে আর সেই সাথে ভ্যালুয়েবল ও এংগেইজিং কন্টেন্ট থাকবে। এখান থেকেও আপনি মাসিক পে আউট পাবেন আর মিনিমাম ইনকাম হতে হবে ৫০ ডলার।

InfoLinks

ইনফোলিংকস সম্পর্কে হয়ত আপনারা অনেকেই ধারনা রাখেন। না রাখলেও সময়সা নেই, আমি তো আছিই ধারনা দেওয়ার জন্য। ইনফোলিংকস একটি ব্যাতিক্রমধর্মী নেটওয়ার্ক যারা অন্যান্যদের চেয়ে অনেক বেশি ইনোভেটিভ। এর কাজ হলো মূলত ইন টেক্সট বিজ্ঞাপন শো করা, মানে হলো এটি কন্টেন্ট এর মধ্য থেকে কিওয়ার্ড খুজে বের করে এবং সেই কিওয়ার্ডগুলোতে বিজ্ঞাপন শো করে।

যখন কোন ভিজিটর ঐ ওয়ার্ডের উপর হোভাক করে তখনই ঐ ওয়ার্ড রিলেটিভ বিজ্ঞাপন প্রদর্শিত হয়ে থাকে। ইনফোলিংকস ব্লগের জন্য খুব সুদর একটি চয়েজ। কারন, ব্লগে বড় আর্টিকেল থাকে আর বেশি ওয়ার্ড মানেই বেশি কিওয়ার্ড। আর বেশি কিওয়ার্ড মানেই বেশি বিজ্ঞাপন আর বেশি রেভিনিউ।

এখন দেখে নেয়া যাক তাদের সাথে যুক্ত হতে কি কি দরকার হবে আপনার। মজার ব্যাপার হলো একটি ওয়েবসাইট বা ব্লগ থাকাই যথেষ্ট ইনফোলিঙ্কসের সাথে কাজ করার জন্য। তাদের কোনো মিনিমাম ভিজিটর বা পেইজভিউ এর প্যারা নেই। নতুন বা পুরাতন যে কোন ব্লগেই এরা নিজেদের বিজ্ঞাপন শো করে থাকে।

ইনফোলিংকস প্রতি ৪৫ দিন পর পর পেমেন্ট দিয়ে থাকে। তাদের মিনিমাম পে আউট এমাউন্ট হলো ৫০ ডলার মাত্র। আর পেমেন্ট নিতে পারবেন পেপাল, ওয়েস্টার্ন ইউনিয়ন, এবং পেওনিয়ার এর মাধ্যমে।

Image Source

Bidvertiser

বিডভার্টাইজার মূলত বিড ক্যাম্পেইন সিস্টেমে কাজ করে। তারা আপনার সাইটে অটোমেটিক্যালি এড পেল করবেনা। তাদের কাজের ধরন একটু আলাদা। তারা আপনার সাইটের বিজ্ঞাপনের জন্য নির্দিষ্ট জায়গাটুকু তার কাছে বিক্রি করবে যেই ঐ প্লেসের জন্য সর্বোচ্চ পরিমান বিড করবে।

তাদের কাজের প্রক্রিয়া একটু জটিল হলেও যদি আপনার ব্লগের সাথে তাদের এড কম্প্যাটিবল হয়ে থাকে তাহলে অ্যাডসেন্সের চাইতেও অনেক বেশি আয় করতে পারবেন যেহেতু তারা বিড করে আপনার জন্য সর্বোচ্চ দামটাই নিবে।

এখন নজর দিই তাদের রিকোয়ার্মেন্টস এর দিকে। এখানেও তাদের কোন মিনিমাম কিছু দরকার নেই আপনার একটা ভালো ওয়েবসাইট থাকলেই হলো। বিডভার্টাইজার ও মাসিক ভিত্তিতে পেমেন্ট দিয়ে থাকে এবং তাদের মিনিমাম পেমেন্ট হলো মাত্র ১০ ডলার। আর আপনি পেপালের মাধ্যমে ইনকামের টাকা পকেটে পুরতে পারবেন।

Image Source

RevenueHits

বলতে গেলে অ্যাড নেটওয়ার্কের শিল্পে নতুন একটি সংযোজন এই রেভিনিউহিটস। ধীরে ধীরে বিশ্বস্ত মনিটাইজেশন অপশন হিসেবে রেভিনিউহিটস এর পাব্লিসার এবং অ্যাডভার্টাইজারদের কাছে জনপ্প্রিয় হয়ে উঠেছে। তাদের মূল আকর্ষণ হচ্ছে এমন একটি অ্যাড অপটিমাইজেশন টুল যেটি আপনার সাইটের ভিজিটরদের ইটারএকশনের উপর ভিত্তি করে আপনাকে দেখিয়ে দিবে যে কোন প্লেস এবং কোন ধরনের বিজ্ঞাপন আপনার ব্লগকে বেশি স্যুট করবে।

রেভিনিউহিটসের সাথে যুক্ত হতে কোন মিনিমাম ভিজিটরের কোটা নেই। তবে মাথায় রাখা ভালো যে , রেভিনিউহিটস পার্ফমেন্স বেইজড বা এটি সিপিসি (Cost Per Click) ফলো করে না। যার মানে হলো যে আপনার ওয়েবসাইটে প্রদর্শিত বিজ্ঞাপনে ক্লিক পড়লেই আপনি ইনকাম করতে পারবেন না।

বরঞ্চ, তাদের বিজ্ঞাপনগুলো ক্লিক করে ভিজিটর যখন বিজ্ঞাপনের মধ্যে দেওয়া টাস্ক বা একশন কমপ্লিট করবে তখন আপনি আয় করতে পারবেন। যেমন ধরুন, কিছু কেনাকাটা বা সাবস্ক্রাইব করলেই কেবল আপনি রেভিনিউ পাবেন।

রেভিনিউহিটস পেপাল এবং পেওনিয়ারের মাধ্যমে ৩০ দিনের ভিত্তিতে পেমেন্ট দিয়ে থাকে। তাদের মিনিমাম পে আউট এমাউন্ট মাত্র ২০ ডলার। তো, ট্রাই করে দেখে নিতে পারেন।

Image Source

Adcash

অ্যাডক্যাশ প্রতি মাসে ২০০ মিলিয়নেরও বেশি সক্রিয় ব্যবহারকারী এবং ৮,৫০,০০০ অ্যাপ্লিকেশন ইনস্টলকারীদের সার্ভ করে থাকে। এটি স্ট্যান্ডার্ড ডিসপ্লে বিজ্ঞাপন থেকে পপ-আন্ডারস এবং ইনস্ট্রিম ভিডিও বিজ্ঞাপনের মতো আরও প্রিমিয়াম ইউনিটগুলিতে প্রায় সমস্ত বিজ্ঞাপন ফর্ম্যাটগুলিকে সাপোর্ট করে। কোনও বিজ্ঞাপন ইউনিট প্লেসমেন্ট এবং কাস্টমাইজ করা সহজ এবং আপনি অ্যাডমিন প্যানেলের মাধ্যমে আপনার বিজ্ঞাপনের পারফরম্যান্সের রিয়েল-টাইম রপোর্টগুলো দেখতে পারেন।

রেভিনিউহিটস-এর মতো অ্যাডক্যাশও পে পার একশন মডেল অনুসরণ করে। এটি পেপাল, পেওনিয়ার, স্ক্রিল এবং ওয়েবমানির মাধ্যমে অর্জিত অর্থ প্রদান করে। একটি অতিরিক্ত সুবিধা হিসাবে, মাত্র ২৫ ডলারের মিনিমাম পে আউট মোটামুটি কম।

Image Source

BuySellAds

যদি আপনার ব্লগ ধারাবাহিকভাবেই খুব ভালো পরিমানের ট্রাফিক জেনারেট করে থাকে তাহলে BuySellAds কে সেলফ সার্ভিং অ্যাড পোর্টাল হিসেবে একটা ট্রাই মেরে দেখতে পারেন। তবে এদের সাথে যুক্ত হওইয়ার জন্য আপনার প্রয়োজন হবে মাসিক ১,০০,০০০ পেইজভিউ। তারা শুধুমাত্র খুব টিপটপ ডিজাইনের ইংলিশ ব্লগগুলোকেই সাপোর্ট করে থাকে।

যদি আপনি ভালো একটি অবস্থানে যেতে পারেন তাহলে প্রতি ক্লিকে আপনি ৭৫ শতাংশ কমিশন পাবেন। যা এই বাজারে এবং অন্যান্য নেটওয়ার্কের তুলানায় বেশ কম্পিটিটিভ। তাছাড়া গুগলের ৬২ শতাংশ কমিশনের চাইতেও অনেক বেশি পরিমান কমিশন তারা অফার করছে প্রতি ক্লিকে তাই এটিও একটি ভালো অযাডসেন্স বিকল্প হতেই পারে।

বিজ্ঞাপন ফর্ম্যাটগুলিতে ব্যানার, টেক্সট বিজ্ঞাপন, নেটিভ বিজ্ঞাপন, আরএসএস ফিড বিজ্ঞাপন, ইমেল বিজ্ঞাপন এবং সামগ্রী স্পনসরশিপ অন্তর্ভুক্ত রয়েছে। অন্যান্য অ্যাড নেটওয়ার্কগুলির বিপরীতে, বাইসেলএডস অটোমেটিক বা টার্গেটেড অ্যাড শো করে না। তার পরিবর্তে, পাব্লিশাররা তাদের সাইটের বিজ্ঞাপনের জন্য নির্দিষ্ট স্থানটি মার্কেটপ্লেসের মাধ্যমে বিজ্ঞাপনদাতাদের কাছে বিক্রয় করতে পারে।

Image Source

Skimlinks

স্কিমলিংকস মূলত একটি স্পেশাল এফিলিয়েট মার্কেটিং নেটওয়ার্ক। এজন্য তারা আমার লিস্টের অন্যান্য বিজ্ঞাপন নেটওয়ার্কগুলোর থেকে অনেক আলাদা। এদের কাজের ধরনটা অনেক ব্যাতিক্রমী।

স্কিমলিংকস প্রথমেই আপনার ওয়েবসাইটের টেক্সট স্ক্যান করবে এবং তাদের সাথে যুক্ত আছে এমন ওয়েবসাইট বা ভেন্ডরের খোজ করবে। এমন কোন লিংক যখন খুজে পাবে তখন এটিকে তারা এফোঁড়লইয়েট লিংক হিসেবে কাউন্ট করবে এবং ঐ লিংক থেকে রেভিনিউ এর ৭৫ শতাংশ আপনাকে কমিশন হিসেবে প্রদান করবে।

স্কিমলিংকগুলি এমন ব্লগারদের জন্য আদর্শ, যারা অ্যাড শো করা ছাড়াই (বা অতিরিক্ত হিসাবে) তাদের টেক্সট কন্টেন্টকে মনিটাইজ করতে চান। এই নেটওয়ার্ক অ্যাফিলিয়েট এর মত কাজ করে বিধায় রিভিউ ব্লগের জন্য এটি পারফেক্ট একটি অপশন বলে আমি মনে করি। যারা প্রোডাক্ট রিভিউ করে থাকেন ব্র্যান্ডের নামসহ তাদের জন্য এর চেয়ে ভালো সিলেকশন হতেই পারেনা।

যদি আপনার কোন রিভিউ ব্লগ থেকে থাকে তাহলে অবশ্যই স্কিমলিংকস ট্রাই করতে ভুলবেন না। এদের পে আউট এমাউন্টও অনেক কম, মাত্র ১০ ডলার যা তারা ৯০ দিন অন্তর পাঠিয়ে দিয়ে থাকে।

Image Source

Amazon Native Shopping Ads

আমার মনে হয় অ্যামাজন নেটিভ অ্যাড সম্পর্কে কমবেশি সবাই জানি আমরা। অ্যামাজন নেটিভ শপিং বিজ্ঞাপনগুলি, অ্যামাজন অ্যাসোসিয়েটস প্রোগ্রামের একটি অংশ। আপনার ব্লগের পৃষ্ঠাগুলিতে নেটিভ আমাজন পণ্যের তালিকা শো করেতে পারেন খুব সহজেই। এই বিজ্ঞাপনগুলি আপনার পেইজ এবং কন্টেন্টের উপর ভিত্তি করে শো করা হবে।

যখন কোন ভিজিটর এই বিজ্ঞাপনগুলির মধ্যে একটিতে ক্লিক করে এবং তারপরে অ্যামাজনে যে কোনও পণ্য ক্রয় করে, আপনি ক্রয় থেকে কমিশন পাবেন। ই-কমার্সে অ্যামাজনের অতুলনীয় তার খ্যাতির জন্য, আপনার ভিজিটরদের এমন বিজ্ঞাপনের প্রতি এংগেইজ হবার সম্ভাবনা অনেক বেশি কারন তাদের প্রয়োজন হতে পারে এমন অনেক অসংখ্য পণ্য অ্যামাজনে পাওয়া যায়।

অ্যামাজন ৬০ দিন অন্তর অন্তর কমিশন পে করে থাকে। তাদের মিনিমাম পে আউট ও অনেক কম মাত্র ১০ ডলার। আর খুব সহজেই এই অর্থ আপনি সংগ্রহ করতে পারবেন।

Image Source

অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্পঃ পরিশেষ

একটি উচ্চমানের অ্যাডসেন্স এর বিকল্প অ্যাড নেটওয়ার্ক আপনাকে অনেক ভাবে সাহায্য করবে। যেমন ধরুন, একটি বাড়তি আয়ের উৎস হিসেবেই হোক না কেন। তাছাড়া এই বাড়তি অর্থ আপনাকে আরও ভালো ব্লগ কন্টেন্ট লিখতে অনুপ্রেনিত করবে এবং আপনার ওয়েবসাইট এর ব্যাহভার বহন করতেও অনেক সাহায্য করবে।

সবশেষে বলতে চাই, লিস্টের যেকোন একটি নেটওয়ার্কে ডিসাইড না করে প্রথমে সবগুলোকে ট্রাই করে যাচাই করে দেখে নিন। এতে করে আপনি জানতে পারবেন যে কোনটি আপনার জন্য সবচেয়ে ভালোভাবে কাজ করেছে। এতে করে আপনার রেভিনিউটাও অনেকাংশে ভালো জেনারেট হবে।

অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্পঃ পর্ব ২

আজ এই পর্যন্তই, সামনে আসছি অ্যাডসেন্স এর সেরা বিকল্পঃ পর্ব ২ নিয়ে। সেই পোষ্টটিতে আমি আরও ১০টি এমন বিকল্প নেটওয়ার্ক সম্পর্কে কথা বলবো। সেগুলোও ট্রাই করতে ভুলবেন না, আর যাতে করে সেই পোষ্ট মিস না করেন তারজন্য আমার ফেইসবুক পেইজ লাইক দিয়ে রাখুন, টুইটারে ফলো করুন আর আমার ওয়েবসাইটে সাবস্ক্রাইব করে রাখুন। আর বাংলা ভাষায় ব্লগিং নিয়ে আমার লেখা অন্যান্য পোষ্টগুলিও পড়তে ভুলবেন না। আমার লেখা ভালো লাগলে অবশ্যই শেয়ার করবেন। ধন্যবাদ।

Default image
Shafat Mahmud Khan
আমি একজন প্রোফেশনাল ওয়েবসাইট ডেভেলপার। পাশাপাশি আমি ব্লগিং করে থাকি। আমি নিয়মিতভাবে আমার ওয়েবসাইটে বাংলা ভাষায় ব্লগিং টিপস, এসইও টিপস এবং টিউটোরিয়াল শেয়ার করি। আমি চাই বাংলাভাষাতেও উন্নতমানের কন্টেন্ট তৈরি করতে ও অন্যদেরও এই কাজে উৎসাহিত করতে।

Leave a Reply